যৌন মিলনের পর জ্বালা-পোড়া ও পেট ব্যথার কারণ ও প্রতিকার

হাকীম মিজানুর রহমান :

শারীরিক সম্পর্কের পর অনেক সময় পুরুষের বীর্যের কারণে নারীদের অ্যালার্জি হতে পারে। একে বলে ‘সিমেন অ্যালার্জি’।

এ জন্য সঙ্গীর বীর্জস্খলনের পর কোনো কোনো নারী তার যৌনাঙ্গে জ্বালা-পোড়া অনুভব করে থাকেন। এটা মূলত পুরুষের বীর্যে যে প্রোটিন থাকে তার কারণেই হয়।

তবে সিমেন অ্যালার্জির সঙ্গে পুরুষ বন্ধ্যাত্বের কোনো সম্পর্ক নেই।

সিমেন অ্যালার্জির লক্ষণগুলো হতে পারে—নারী যোনীর আশপাশের চামড়া লালচে হয়ে যাওয়া, মিলন-পরবর্তী বীর্যস্খলনে নারী তার যোনীতে জ্বালা-পোড়ার অনুভূতি পাওয়া, চামড়ার যে অংশে বীর্য পড়ে তা ফুলে যাওয়া (সাধারণত যোনীর বাইরের অঞ্চল)।

খুব কম সংখ্যক নারীর ক্ষেত্রে হয়তো আমবাত/প্রদাহ, চুলকানি এমনকি শ্বাস-প্রশ্বাসের কষ্টে ভুগতে পারেন।

যদি আপনার এমন কিছু অনুভব হয় তাহলে ডাক্তারের সঙ্গে দেখা করতে হবে। ডাক্তারই বলতে পারবে আদৌ আপনার সিমেন অ্যালার্জি আছে কি না–নাকি এটি অন্য কোনো সমস্যা? অ্যালার্জি পরীক্ষা হয়তো জরুরি।

যদি আপনার সিমেন অ্যালার্জি খুবই প্রকট, আপিনি হয়তো ডাক্তারের তত্ত্বাবধানে বীর্যের প্রোটিন অংশ ধৌত করে কৃত্রিমভাবে যোনীতে শুক্রাণু স্থাপন/প্রবেশ করিয়ে গর্ভবতী হতে পারেন।

সহবাসের পর পেট ব্যাথা হয় যে সব কারণে
মাসিকের সময় সহবাস: পিরিয়ডের সময় সহবাস(Intercourse) করলে সহবাসের পর পেট মোচড় দিতে পারে। ডা. খলিল বলেন, ‘কিছু নারী মাসিক চক্রের বিভিন্ন পয়েন্টে বেশি স্পর্শকাতর হয়ে পড়ে। এসময় তাদের স্পর্শকাতর স্থানে পেনিসের অতিরিক্ত খোঁচা বা ধাক্কা বা চাপে অস্বস্তিকর অনুভূতি হতে পারে।’ আপনার পিরিয়ডের(Period) সময় সহবাস করলে এবং এরপর পেটে ব্যথা অনুভূত হলে এর সঙ্গে মাসিক চক্রের যোগসূত্র থাকার সম্ভাবনা বেশি।

নানাবিধ চিন্তা: ‘সেক্সুয়াল পেন’-এর অন্যতম প্রধান কারণ লুব্রিকেশনের অভাব। এমনিতে যৌন মিলনের(Sexual intercourse) ইচ্ছে জাগলে নারীদের গোপনাঙ্গ লুব্রিকেট বা পিচ্ছিল হয়ে ওঠে। কিন্তু ধরা যাক কোনও নারী মিলনের সময় অন্য কিছু ভাবছেন, সেক্ষেত্রে তাঁর বিশেষ অঙ্গে পিচ্ছিলতার অভাব দেখা দিতেই পারে। ডাক্তাররা বলছেন, ঘনিষ্ঠ মুহূর্তে সকালে উঠে কত বাসন মাজতে হবে বা কাজের মাসি কাল আসবে কি না, এই সব হাবিজাবি কথা ভাববেন না একদম! আর যদি এমনটাই করেন, তাহলে মিলনের সময় ওয়াটার বেসড লুব্রিকেন্ট(Water based lubricant) ব্যবহার করুন।

তবে ‘ভ্যা’জাইনাল ড্রাইনেস’ বা যোনিতে শুষ্কভাব কিন্তু একটি জটিল অসুখ। নর্থওয়েস্টার্ন ইউনিভার্সিটির অধ্যাপক এমডি লরি স্ট্রেচার বলছেন, খুব কম সংখ্যক হলেও কিছু নারী এমন অস্বাভাবিকত্ব নিয়ে জন্মান।

ইস্ট ইনফেকশন থেকেও মিলনের সময় ব্যথা অনুভব করতে পারেন নারীরা। সুগন্ধীযুক্ত সাবান(Soap), অ্যালকোহল যুক্ত ডিও থেকে এই জাতীয় সংক্রমণ হতে পারে। প্রথমে যোনির বাইরের অংশে চুলকানি, পরে ব্যথা ও জ্বালা করে। এমনটা টের পেলে অবিলম্বে ডাক্তারের কাছে যেতে বলছেন বিশেষজ্ঞরা। নিজে থেকে কখনই কোনও ওষুধ(Medicine) খাবেন না যেন।

অনেক নারী মিলনের সময় যোনিতে শুধু যে জ্বালা ও ব্যথা(Pain) অনুভব করেন তাই নয়, অনেকের নাকি জ্বর এসে যাওয়ার মতো পরিস্থিতিও তৈরি হয়। মিলনের সময় তাঁরা তলপেটে ব্যথা অনুভব করেন। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এই ধরনের নারীরা সেক্সুয়ালি খুব একটা অ্যাক্টিভ নন। তাঁদের মনে যৌনাকাঙ্খা(Sexual desire) কম। এক্ষেত্রে প্রয়োজনে মনোবিদের পরামর্শ নেওয়া যেতে পারে।

অনেক সময় নারীদের যোনিতে শারীরিক কিছু সমস্যা দেখা যায়। Vaginismus-এর মতো রোগে যে পেশীগুলি সঙ্গমের সময় নমনীয় হওয়ার দরকার, সেগুলি স্বাভাবিক আচরণ করে না। ছোটবেলায় যাঁরা কোনও বড় শারীরিক বা মানসিক আঘাত পেয়েছেন,তাঁদের মধ্যে এই রোগের আধিক্য দেখা যায়। এমনটা হলে অবশ্যই এক স্ত্রীরোগ বিশেষজ্ঞকে দেখাতে হবে।

জরায়ুতে ক্যানসারমুক্ত টিউমার বা ইউটেরাইন ফাইব্রোয়েড ও ডিম্বাশয়ে তরলপূর্ণ থলে বা ওভারিয়ান সিস্ট থাকলেও সহবাস পরবর্তী পেট ব্যথা হতে পারে, বলেন ডা. খলিল। ফাইব্রোয়েড হচ্ছে জরায়ুর এমন নির্দোষ বৃদ্ধি যা বেশ কমন ও প্রায়শ উপসর্গবিহীন থেকে যায়। অনেক নারী জানেনই না যে তাদের ফাইব্রোয়েড রয়েছে। যদি এই নির্দোষ টিউমার(Tumor) উপসর্গ প্রকাশ করে,

তাহলে আপনার পেলভিকে চাপ বা ব্যথা অনুভব করবেন ও কোষ্ঠকাঠিন্য হতে পারে, উভয়েই সহবাসের পর পেট মোচড়ানোর কারণ হতে পারে। ওভারিয়ান সিস্ট হচ্ছে ডিম্বাশয়ের পৃষ্ঠে বিকশিত তরলভর্তি থলে। ফাইব্রোয়েডের মতো সিস্টও বেশ কমন এবং প্রায়শ উপসর্গ বা সমস্যা সৃষ্টি করে না, কিন্তু বড় সিস্ট পেলভিকে ব্যথা ও পেটে ভারী অনুভূতি দিতে পারে।

সুস্থ থাকুন, নিজেকে এবং পরিবারকে ভালোবাসুন। আমাদের লেখা আপনার কেমন লাগছে ও আপনার যদি কোনো প্রশ্ন থাকে তবে নিচে কমেন্ট করে জানান। আপনার বন্ধুদের কাছে পোস্টটি পৌঁছে দিতে দয়া করে শেয়ার করুন। পুরো পোস্টটি পড়ার জন্য আপনাকে অনেক ধন্যবাদ।

সারাদেশে কুরিয়ার সার্ভিসের মাধ্যমে বিশ্বস্ততার সাথে ঔষধ ডেলিভারী দেওয়া হয়।

ঔষধ পেতে যোগাযোগ করুন :

হাকীম মিজানুর রহমান (ডিইউএমএস)

হাজীগঞ্জ, চাঁদপুর।
ইবনে সিনা হেলথ কেয়ার
একটি বিশ্বস্ত অনলাইন স্বাস্থ্যসেবা প্রতিষ্ঠান।

মুঠোফোন : (চিকিৎসক) 01742-057854

(সকাল দশটা থেকে বিকেল ৫টা)

ইমো/হোয়াটস অ্যাপ : (চিকিৎসক) 01762-240650

ই-মেইল : ibnsinahealthcare@gmail.com

সারাদেশে কুরিয়ার সার্ভিসে ঔষধ পাঠানো হয়।

শ্বেতীরোগ একজিমাযৌনরোগ, পাইলস (ফিস্টুলা) ও ডায়াবেটিসের চিকিৎসক।

আরো পড়ুন : শ্বেতী রোগের কারণ, লক্ষ্মণ ও চিকিৎসা

আরো পড়ুন : মেহ-প্রমেহ ও প্রস্রাবে ক্ষয় রোগের প্রতিকার

আরো পড়ুন : অর্শ গেজ পাইলস বা ফিস্টুলা রোগের চিকিৎসা

আরো পড়ুন : ডায়াবেটিস প্রতিকারে শক্তিশালী ভেষজ ঔষধ

আরো পড়ুন : যৌন রোগের শতভাগ কার্যকরী ঔষধ

আরো পড়ুন :  নারী-পুরুষের যৌন দুর্বলতা এবং চিকিৎসা

আরো পড়ুন : দীর্ঘস্থায়ী সহবাস করার উপায়

আরও পড়ুন: বীর্যমনি ফল বা মিরছিদানার উপকারিতা

Loading

শেয়ার করুন

Leave a Reply